Home Page

Id No...250

Name : Selltoearn.com
E-mail :1 selltoearnmoney@gmail.com
E-maail :2 info@selltoearn.com
News Type : International
Location :ABROAD

দলিত ক্ষোভে আসন নড়বড়ে হতে পারে মোদির

Not Verified Yet...Plz, wait a while……


দিল্লির মসনদ দখলের পর থেকে ধীরে ধীরে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে সরকার গঠন করছে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। বামপন্থী বা কংগ্রেস বা আঞ্চলিক কোনো রাজনৈতিক দলই বিজেপির সাফল্যে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। এমনকি জোরদার আন্দোলন গড়ে তুলতেও ব্যর্থ হয়েছে তারা। অথচ সেই বিজেপির বিরুদ্ধে স্বতঃস্ফূর্ত ক্ষোভের সুস্পষ্ট বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে দলিত সম্প্রদায়ের মানুষ। বিশ্লেষকেরা বলছেন, এতে ভোট ব্যাংক থেকে শুরু করে বিজেপির রাজনীতি—সবকিছুই ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। টলে উঠতে পারে মোদির গদিও! এপ্রিলের ২ তারিখ। কিছু দলিত গোষ্ঠী ‘ভারত বন্‌ধ্‌’ ডেকেছিল সেদিন। প্রায় দুই সপ্তাহ আগে দেশটির সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া এক রায়ের প্রতিবাদে এই বন্‌ধ্‌ ডাকা হয়। তফসিলি জাতি ও উপজাতিদের (শিডিউলড কাস্ট ও শিডিউলড ট্রাইব) বিরুদ্ধে সহিংসতা প্রতিরোধ করতে ১৯৮৯ সালে একটি আইন প্রণয়ন করা হয়েছিল। আদালত সেই আইনের কিছু কঠোর বিধান পরিবর্তন করার আদেশ দেন। আর তারই প্রতিবাদে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে দলিত সম্প্রদায়ের মানুষেরা। ভারতের ১০টি রাজ্যে ছড়িয়ে পড়ে সহিংসতা। নেতৃত্ববিহীন এই বিক্ষোভে দলিত সম্প্রদায়ের মানুষেরা পুলিশ ও উচ্চবর্ণের হিন্দুদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। ফলাফল: ১১ জনের মৃত্যু ও কোটি কোটি রুপির সম্পদ ধ্বংস। এই বিক্ষোভ এতটাই আচমকা ও স্বতঃস্ফূর্ত ছিল যে সরকারি দলের পাশাপাশি বিরোধী দলগুলোও কিছুটা অপ্রস্তুত হয়ে পড়ে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, তফসিলি জাতি ও উপজাতিদের বিরুদ্ধে সহিংসতা প্রতিরোধের আইনটি ছিল ওই সব সম্প্রদায়ের মানুষের নিরাপত্তা ঢাল। উচ্চবর্ণের হিন্দুদের অত্যাচার থেকে বাঁচাতেই এ আইন করা হয়েছিল। কিন্তু সর্বোচ্চ আদালত আইনের কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিধান বাতিল করেছেন। এসবের মধ্যে রয়েছে অনগ্রসর জাতিগোষ্ঠীর কারও বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় আগাম জামিন বাতিল, সরকারি কর্মচারী হলে শুধু ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে গ্রেপ্তার করা ইত্যাদি। অথচ তফসিলি জাতি-উপজাতিভুক্ত নয়, এমন সাধারণ নাগরিকের (যাঁরা সরকারি কর্মচারী) ক্ষেত্রে গ্রেপ্তার করতে হলে পুলিশের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার অনুমতি প্রয়োজন হয়। কিন্তু পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য তা প্রয়োজন নেই বলে অভিমত দিয়েছেন আদালত। মজার বিষয় হলো, আদালতের পর্যালোচনায় বলা হয়েছে একটি ‘বর্ণহীন সমাজ’ গঠন করতেই এ আদেশ দেওয়া হয়েছে!

Source: Plz, click here to show
--------------------------------

Last 10 Records |Next 10 Records


উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং–উনের সাম্প্রতিক চীন সফরকালে তাঁর পাশে এক নারীকে দেখা যায়। তাঁকে নিয়ে বিশেষ করে চীনাদের উৎসাহ ছিল চোখে পড়ার মতো। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেরও নজর কাড়েন তিনি। তাঁর সম্পর্কে নানা আঙ্গিকে সচিত্র খবর বেরিয়েছে। এসব খবরের বদৌলতে ‘রহস্যময়ী’ নারীর তকমা পেয়েছেন তিনি।***** info@selltoearn.com***



স্বাধীনকথা মিডিয়া

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: Kaliakair, Gazipur, Dhaka, Bangladesh.
http://www.selltoearn.com

প্রধান উপদেষ্টা সম্পাদক:মোঃ রহমান

E-mail:selltoearnmoney@gmail.com

উপদেষ্টা সম্পাদক: মোঃ রহমান

কারিগরি সহযোগীতায় :
হেমাস আইটি http://www.selltoearn.com

E-mail: info@selltoearn.com

স্বাধীনকথা মিডিয়া

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত স্বাধীনকথা মিডিয়া